রবিবার, ১৯ জানুয়ারী ২0২0, Current Time : 3:53 am




স্মরণ সভায় বক্তারা
সাদেক হোসেন খোকা ছিলেন অসম্প্রদায়িক রাজনীতিক

সাপ্তাহিক আজকাল : 07/12/2019

আজকাল রিপোর্ট
সদ্য প্রয়াত অবিভক্ত ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র, সাবেক মন্ত্রী, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান, জাতীয় নেতা এবং বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা সাদেক হোসেন খোকা ছিলেন একজন প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা। তিনি ছিলেন অসাম্প্রদায়িক, মানবতাবাদী এবং দেশপ্রেমিক একজন জাতীয় নেতা। তার সাথে কারো তুলনা চলে না। তার তুলনা শুধু তিনি নিজেই।
গত ১ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় সাদেক হোসেন খোকা স্মরণ সভায় বক্তারা এ সব কথা বলেন। স্মরণ সভা ছাড়াও আয়োজন করা হয় বিশেষ দোয়া মাহফিলের। প্রবাসী বাংলাদেশী নাগরিক সমাজ আয়োজিত জ্যাকসন হাইটসের বেলাজিনো পার্টি হলে অনুষ্ঠিত হয় এ স্মরণ সভা। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন আয়োজক কমিটির অন্যতম সদস্য আতিকুর রহমান সালু। সঞ্চালনা করেন সাপ্তাহিক বাংলাদেশ পত্রিকার সম্পাদক ডা. ওয়াজেদ এ খান।
অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, সাদেক হোসেন খোকাকে হারিয়ে বাংলাদেশ একজন দেশপ্রেমিক এবং গণতান্ত্রিক নেতাকে হারালো। তিনি ছিলেন দলমতের উর্ধ্বে। তিনি মুক্তিযোদ্ধাদের নামে ঢাকা শহরে সড়কের নামকরণ করেছেন দলের উর্ধ্বে থেকে। এসব কারণেই সার্বজনীন নেতা ছিলেন তিনি। তার কাছ থেকে কেউ খালি হাতে ফিরে আসেননি। তিনি সব সময় দেশ এবং দেশের মানুষের জন্য কাজ করেছেন।
বক্তাদের কেউ কেউ ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, একজন মহান মুক্তিযোদ্ধাকে পাসপোর্ট ছাড়াই দেশে নিয়ে যেতে হয়েছে, এর চেয়ে দু:খজনক ঘটনা আর কি হতে পারে? সাদেক হোসেন খোকা একজন মুক্তিযোদ্ধা। তারপরেও রাজনৈতিক কারণে তার নামে মামলা দেয়া হয়েছে, সাজা দেয়া হয়েছে। প্রতিহিংসার বশবর্তী হয়ে সম্পত্তি কেড়ে নেয়ার ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। সাদেক হোসেন খোকা সব সময় একটি গণতান্ত্রিক বাংলাদেশ চেয়েছিলেন। তার সেই স্বপ্ন বাস্তবায়ন করা আমাদের দায়িত্ব। স্মরণ সভার সূচনা পর্বে অনুষ্ঠানের অন্যতম আয়োজক ডা: ওয়াজেদ খান বলেন, সাদেক হোসে খোকা একটি নাম। এ নাম বাংলাদেশে ইতিহাসে অবিস্মৃত, অম্লান থাকবে অনাদিকাল। অবিভাজ্য দেশপ্রেম, মানুষের প্রতি অকৃত্রিম ভালোবাসা ও মহানুভবতা তার জীবনকে করেছে মহিমান্বিত। বলিষ্ঠ নেতৃত্ব ও কর্মগুণে রাজধানী ঢাকা শহরে তিনি অদ্বিতীয় নেতা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেন নিজেকে। তিনি সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন চারবার। প্রতিমন্ত্রী, মন্ত্রী অবিভক্ত ঢাকার দীর্ঘ সময়ের জন্য মেয়র ছিলেন। বাংলাদেশের রাজনীতিতে পরম সহিষ্ণুতার প্রতীক খোকা ভাই। মৃত্যুর মধ্য দিয়ে তিনি প্রমাণ করেছেন তার প্রতি দেশের মানুষের ভালোবাসা ও শ্রদ্ধা ছিল পর্বত প্রমাণ।
অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন সাদেক হোসেন খোকার একমাত্র কন্যা সারিকা সাদেক, খোকার বোন মাজেদা হোসেন, ঠিকানার প্রধান সম্পাদক মুহম্মদ ফজলুর রহমান, প্রবীণ সাংবাদিক মনজুর আহমদ, সাংবাদিক মঈনুদ্দীন নাসের, বাংলা পত্রিকার সম্পাদক আবু তাহের, সাপ্তাহিক পরিচয় সম্পাদক নাজমুল আহসান, কম্যুনিটি এক্টিভিস্ট এবং অন্যতম আয়োজক আলী ইমাম শিকদার, মুক্তিযোদ্ধা ও অন্যতম আয়োজক খন্দকার ফরহাদ, বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সহ আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক শিল্পী বেবি নাজনীন, যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির সাবেক সহ সভাপতি অধ্যাপক দেলোয়ার হোসেন, যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক জিল্লুর রহমান জিল্লু, যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির সাবেক যুগ্ম আহবায়ক মিজানুর রহমান ভূঁইয়া মিল্টন, লং আইল্যান্ড ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক ড. শওকত আলী, যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির সাবেক কোষাধ্যক্ষ জসীম ভূঁইয়া, বাংলাদেশ সোসাইটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ হোসেন খান, জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টারের সেক্রেটারি মঞ্জুর আহমেদ চৌধুরী, এডভোকেট মজিবুর রহমান, বাংলাদেশ সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিন সিদ্দিকী, বাংলাদেশ সোসাইটির নির্বাচনে সভাপতি প্রার্থী কাজী আশরাফ হোসেন নয়ন, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় এলামনাই এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম, ছাত্রদলের সাবেক নেতা মোশাররফ হোসেন সবুজ, যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি নেতা পারভেজ সাজ্জাদ, কাজী শাখাওয়াত হোসেন আজম, যুক্তরাষ্ট্র যুব দলের সভাপতি জাকির এইচ চৌধুরী, জ্যামাইকা বাংলাদেশ ফ্রেন্ডস সোসাইটির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ফখরুল ইসলাম দেলোয়ার, বাংলাদেশ সোসাইটির সিনিয়র সহ সভাপতি আব্দুর রহিম হাওলাদার, মুফতি মোহাম্মদ ইসমাইল, বাংলাদেশ সোসাইটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ফখরুল আলম, বাংলাদেশ সোসাইটির কোষাধ্যক্ষ মোহাম্মদ আলী, যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির সাবেক যুগ্ম সম্পাদক হেলাল উদ্দিন, জাতীয়তাবাদী ফোরামের সাধারণ সম্পাদক গোলাম এম হায়দার মুকুট, বিএনপি নেতা সেলিম রেজা, জ্যামাইকা বাংলাদেশ ফ্রেন্ডস সোসাইটির সভাপতি শেখ হায়দার আলী প্রমুখ।
সারিকা সাদেক অনুষ্ঠান আয়োজন করার জন্য ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, প্রবাসী এবং বাংলাদেশীরা আমার বাবার প্রতি যে ভালবাসা দেখিয়েছেন সে জন্য আমরা কৃতজ্ঞ। তবে সত্যি বলতে কী- এখনো বিশ্বাস হয় না, আমার বাবা নেই। তাকে সব সময় অনুভব করি। আপনারা আমাদের জন্য দোয়া করবেন।
মাজেদা হোসেন বলেন, ছোট বেলা থেকে মৃত্যুর আগ পর্যন্ত সাদেক হোসেন খোকা ছিলেন আমার ছোট বেলা থেকেই সাথী। কখনো খেলার সাথী, কখনো বন্ধু। তার সাথে আমার অনেক স্মৃতি। সেগুলো বলে আর শেষ করা যাবে না। তবে প্রবাসী এবং দেশবাসী আমাদের যে সহযোগিতা করেছেন সে জন্য তাদের কাছে কৃতজ্ঞ।
অনুষ্ঠানে সাদেক হোসেন খোকার পুত্র প্রকৌশলী ইশরাক হোসেন ঢাকা থেকে ভিডিও বার্তা পাঠান। তিনি আয়োজকদের ধন্যবাদ জানান। অনুষ্ঠানের শুরুতে কোরআন তেলওয়াত করেন জ্যাকসন হাইটস মসজিদের ঈমাম মাওলানা আব্দুস সাদিক এবং দোয়া পরিচালনা করেন জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টারের ঈমাম মির্জা আবু জাফর বেগ।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সাদেক হোসেন খোকার কন্যা সারিকা সাদেক, তার বন্ধু ইঞ্জিনিয়ার লস্কর, তার ভগ্নিপতি আব্দুল আজিজ, তার বোন মাজেদা হোসেনসহ বিএনপি ও অঙ্গ এবং সহযোগি সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।



Chief Editor & Publisher: Zakaria Masud Jiko
Editor: Manzur Ahmed
37-07 74th Street, Suite: 8
Jackson Heights, NY 11372
Tel: 718-565-2100, Fax: 718-865-9130
E-mail: [email protected]
� Copyright 2009 The Weekly Ajkal. All rights reserved.