শনিবার, ২0 জুলাই ২0১৯, Current Time : 1:54 am




আতঙ্কে আনডক্যুমেন্টেড বাংলাদেশিরা
আজ থেকে আবার ধরপাকড়

সাপ্তাহিক আজকাল : 06/07/2019

আজকাল রিপোর্ট
আজ থেকে কাগজপত্রহীন অভিবাসীদের আবারও ধরপাকড় শুরু হচ্ছে। অবৈধদের তল্লাশি করে বিতাড়নের নির্দেশ জারি করলেও দুই সপ্তাহের জন্য তা স্থগিত করেছিলেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। গতকাল বৃহস্পতিবার প্রেসিডেন্টের স্থগিতাদেশ শেষ হচ্ছে। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১২টা থেকে (শুক্রবার) আবারও ধরপাকড় শুরু করতে যাচ্ছে ইমিগ্রেশন এন্ড কাস্টমস এনফোর্সমেন্টট-আইস। এই পরিস্থিতিতে যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশিসহ আনডক্যুমেন্টেড অভিবাসীদের মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করছে।
অভিবাসী-স্রোত আটকাতে এবং ‘অবৈধদের’ বিতারনে কড়া ব্যবস্থা নিয়েছে ট্রাম্প প্রশাসন। দুই সপ্তাহ আগে স্বভাবসিদ্ধ নাটকীয় ভঙ্গিতে সে কথা ঘোষণা করেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। সেই সঙ্গে তিনি আরও জানান, গুয়েতেমালাও এই ব্যাপারে আমেরিকার সঙ্গে রয়েছে। টুইটারে প্রেসিডেন্ট লিখেন, ‘আগামী সপ্তাহ থেকে মার্কিন অভিবাসন দপ্তর কাগজপত্রবিহীন অভিবাসী খুঁজতে কাজ শুরু করবে। এর মধ্যে যেখানেই কোনও সমস্যা দেখা দেবে, সেই বিষয়ে ট্রাম্প নিজে খতিয়ে দেখবেন। এবং কারও কোনও কাগজপত্রে গন্ডগোল দেখা গেলে সেই অভিবাসীকে সঙ্গে সঙ্গে তাঁর দেশে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হবে।’
ট্রাম্প জানান, অনেকে অভিযোগ করছে যে, আমেরিকা থেকে গুয়েতেমালায় গিয়ে আশ্রয় নিচ্ছেন বহু অভিবাসী। সে জন্য এই নতুন অভিযানে গুয়াতেমালাকে পাশে পেয়েছে আমেরিকা। বাদ যায়নি হন্ডুরাসও। তথ্য বলছে, শরণার্থীদের উপর আমেরিকায় চলতি অর্থবর্ষে সাড়ে তিন কোটি লাখ ডলার খরচ করছে। তবে এই শরণার্থী সমস্যা মেটাতে এতদিনে এগিয়ে এসেছে মেক্সিকো।
হোয়াইট হাউসের বাইরে গত সপ্তাহে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়েছিলেন ট্রাম্প। হাতে একটি কাগজ, তাতে অনেক কিছু লেখা এবং নিচে সই করা। কাগজটি নাড়তে-নাড়তে সাংবাদিকদের উদ্দেশে তিনি জানান, যা লেখা আছে, তা একেবারে ‘গোপন’। এটুকু বলতে দ্বিধা নেই, মেক্সিকো-আমেরিকা চুক্তি হয়েছে। চুক্তিপত্রে উল্লেখ করা হয়েছে, অভিবাসী-স্রোত আটকাতে প্রাথমিকভাবে কিছু পদক্ষেপ নিতে চলেছে তারা। সেগুলো সফল না হলে ৪৫ দিনের মধ্যে কঠিন সিদ্ধান্ত নেবে মেক্সিকো।
এরপর দুই সপ্তাহের জন্য তার নির্দেশ স্থগিত করেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। গতকাল বৃহস্পতিবার স্থগিতাদেশের মেয়াদ শেষ হয়েছে।
উল্লেখ্য, যুক্তরাষ্ট্রে প্রায় এক কোটি ২০ লাখ অভিবাসী আছেন কাগজপত্রহীন। অন্যদিকে, এইচ-৪ ভিসা নিয়েও সমস্যা কাটেনি এখনও। এইচ১-বি ভিসায় যাঁরা আমেরিকায় আসেন, তাঁদের সঙ্গে স্বামী বা স্ত্রী এইচ-৪ ভিসা নিয়ে আমেরিকায় কাজ করতে পারেন। সে ব্যাপারে কিছু দিন আগেই ট্রাম্প প্রশাসন জানিয়েছিল, এইচ১-বি ভিসা পাওয়া যেমন কঠিন করেছে, এইচ-৪ ভিসা পেতেও কষ্ট করতে হবে ভারতীয়দের।



Chief Editor & Publisher: Zakaria Masud Jiko
Editor: Manzur Ahmed
37-07 74th Street, Suite: 8
Jackson Heights, NY 11372
Tel: 718-565-2100, Fax: 718-865-9130
E-mail: [email protected]
� Copyright 2009 The Weekly Ajkal. All rights reserved.